Today 05 Feb 2023
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

শুয়াচাঁন পাখি

লিখেছেন: আরজু মূন জারিন | তারিখ: ০৮/০৪/২০১৫

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 1309বার পড়া হয়েছে।

আজকে সবাইকে হাসাতে চাচ্ছি ..নীতিকথা..ভালকথা কিছুক্ষনের জন্য বন্ধ।সবাই মুডটা একটু হাল্কা কর ।আমি গল্প শুরু করছি।সবাইকে অনেক শুভেচ্ছা ভালবাসা সহ গল্প পড়ার আমন্ত্রন রইল।
=========================================================
১ শুয়াচাঁন পাখি আমার

আমি ডাকিতাছি তুমি ঘুমাইছ নাকি
তুমি আমি জনম জনম ছিলাম মাখামাখি
আজ কেন হইলে নীরব
আঁখি দুটি মেল গো মনা

চিৎকার করে আকূতির স্বরে গান গাইছে রতন।তার লক্ষ্য সামনের খুপড়ির জমিলা।গানের সঙ্গে দুইবার ঢিল ছুড়েছে জমিলার খুপড়ি লক্ষ্য করে।

মনটা বিষাদে ভরে আছে।বেলা বাজে দশটা ।এখন ও জমিলার দেখা নেই।চুরি করে আনা সিনেমার টিকেট বুঝি ভেস্তে গেল।

কত আশা ছিল মনে
প্রেম করিমু তোমার সনে
তোমায় নিয়ে ঘর বাধিব গহীন বালুর চরে..রাগে তার মুখে থু থু জমা শুরু করেছে অবধারিতভাবে তার নিজস্ব আঞ্চলিকতায় গান শুরু করেছে..কত আশা করছিলাম
তোরে লয়া ঘর বান্ধুম গহীন বালুর চরো..যা মরগা আমি যাইগা একা একা সিনেমা দেখিগা রাগে বকতে বকতে উঠে দাড়ায়।

বুক ধ্বক করে উঠল রতনের দেখল তখন ই দরজা আস্তে আস্তে খুলছে।আল্লাহ মালিক.
দরজার গোড়ায় যারে দেখা গেল তার জন্য প্রস্তুত ছিলনা রতন ।পিলে চমকে গেল তার।ঝপ করে মাথা লুকিয়ে ফেলল ঝোপের আড়ালে।কিন্তু তার আগে তাকে দেখে নিয়েছে জমিলার বাবা।
খকখক হাসির সঙ্গে গালি হাত ভাঙ্গি দিমু গো বজ্জাতের পোলা আমার ঘরত তুই ঢিল ছোড়স ..চোখে বিশেষ দেখেন না তিনি ।চশমার এক ফ্রেমে গ্লাস আছে আরেক ফ্রেম গ্লাস ছাড়া।ওই ফাক দিয়ে তার ড্যাবড্যাব চোখ দেখা যাচ্ছে।
লাঠি নিয়া ছুইটা আসে দেখি..ঝোপের দিকে..কি করি কি করি..বুড়া পাগলার হাতথন বাচুম কিভাবে.।
ঝোপের উপর লাঠির বাড়ি পড়ল।একটা কুকুর ঘেও করে উঠল।
বুড়ার লক্ষ্য তাহলে ওই কুকুরটা আমি না।
বাবা ইকটু শুনি যাও তো।
আহঃ এতক্ষনে রতনের কলিজা শান্ত হল।
জমিলারে দেখা গেল দরজার গোড়ায়।
২ হাপাতে হাপাতে চৌরাস্তার মোড়ে এসে দাড়ালো। তার পাশে এসে দাড়িয়েছে আরেক বস্তু। মার খাওয়া কুকুর টা। জিহ্বা বের করে হাপাচ্ছে। দুইজনের দুইধরণের হাপানি। রতনের জমিলা হাপানি। কুকুর টার হলো পিটিয়ে হাপানি বের দেওয়া হয়েছে।

বেচারা ঘরে জায়গা নেই তর কচু পাতার জঙ্গলে ও জায়গা নাই। তোরে কি দরদ দেখামু রে আমগো অবস্থা কি তোর্ থন ভাল ? এই দেশ টা দেখস না মানুষ গুলা কিভাবে আমাদের নেত্রী গুলির দ্বারা দৌড়ায়।ঘরে বাইরে বাজারে শান্তি নাইরে মানুষের। তুই তবু ভালো আছিস। তোর্ কুকুরের মন। আমরা মানুষ মনে মনে কথা গুলি বলে বেশ আত্মপ্রসাদ লাভ করে মনে মনে।

আরে আমি দেখি শিক্ষিত্ হয়ে গেলাম তোর্ পাশে দাড়াই।

না আসলে এ জমিলার প্রভাব। এই মাইয়া টার কি আছে। দেখলে নিজেরে রাজা বাদশা মনে হয়।

ঠিক এইসময় জমিলা এসে তার পিছনে এসে দাড়াল।

কেমন আছ পিঠে টোকা ও দিল একটা দিল গালে গর্ত করে হাসি।

রতন মিয়া এতে বর্তে গেল।

দামাল হয়ে উঠলো তার হৃদপিন্ড টা .
(আমি জোর করে হাসার এবং হাসানোর চেষ্টা করছি ।সবাই হাস হাঃ হাঃ হাঃ..)

(চলবে)

১,২৮২ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
নিজের সম্পর্কে কিছু বলতে বললে সবসময় বিব্রত বোধ করি। ঠিক কতটুকু বললে শোভন হবে তা বুঝতে পারিনা । আমার স্বভাব চরিত্র নিয়ে বলা যায়। আমি খুব আশাবাদী একজন মানুষ জীবন, সমাজ পরিবার সম্পর্কে। কখনো হাল ছেড়ে দেইনা। কোনো কাজ শুরু করলে শত বাধা বিঘ্ন আসলেও তা থেকে বিচ্যুত হইনা। ফলাফল পসিটিভ অথবা নেগেটিভ যাই হোক শেষ পর্যন্ত কোন কাজ এ টিকে থাকি। জীবন দর্শন" যতক্ষণ শ্বাস ততক্ষণ আশ " লিখালিখির মূল উদ্দেশ্যে অন্যকে ভাল জীবনের সন্ধান পেতে সাহায্য করা। মানুষ যেন ভাবে তার জীবন সম্পর্কে ,তার কতটুকু করনীয় , সমাজ পরিবারে তার দায়বদ্ধতা নিয়ে। মানুষের মনে তৈরী করতে চাই সচেতনার বোধ ,মূল্যবোধ আধ্যাতিকতার বোধ। লিখালিখি দিয়ে সমাজে বিপ্লব ঘটাতে চাই। আমি লিখি এ যেমন এখন আমার কাছে অবাস্তব ,আপনজনের কাছে ও তাই। দুবছর হলো লিখালিখি করছি। মূলত জব ছেড়ে যখন ঘরে বসতে বাধ্য হলাম তখন সময় কাটানোর উপকরণ হিসাবে লিখালিখি শুরু। তবে আজ লিখালিখি মনের প্রানের আত্মার খোরাকের মত হয়ে গিয়েছে। নিজে ভালবাসি যেমন লিখতে তেমনি অন্যের লিখা পড়ি সমান ভালবাসায়। শিক্ষাগত যোগ্যতা :রসায়নে স্নাতকোত্তর। বাসস্থান :টরন্টো ,কানাডা।
সর্বমোট পোস্ট: ২২৯ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৩৬৮৩ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৯-০৫ ০১:২০:৩৫ মিনিটে
banner

১৪ টি মন্তব্য

  1. দীপঙ্কর বেরা মন্তব্যে বলেছেন:

    হাসিটাই আমাদের জীবনে সব
    তাই হাসি হা হা হা
    ভাল থাকবেন আপনিও হাসবেন

  2. আরজু মূন জারিন মন্তব্যে বলেছেন:

    দীপঙ্কর দা কি খবর ? অনেক ভালো লাগছে আপনাকে পেয়ে। ধন্যবাদ কমেন্টস এর জন্য। শুভেচ্ছা রইল।

  3. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    আপু মন ভাল লরা গল্প। লিখে যান সাথেই আছি।

  4. এই মেঘ এই রোদ্দুর মন্তব্যে বলেছেন:

    আপনি হারায়ে গেলেন কেন আপি। কেমন আছেন আপনি দুলাভাই আর বাবু

  5. কল্পদেহী সুমন মন্তব্যে বলেছেন:

    জমিলা সুন্দরীর গল্প বেশ জমলো।। ভাল্লাগছে :)

  6. অনিরুদ্ধ বুলবুল মন্তব্যে বলেছেন:

    সুন্দর গল্প এগিয়ে যাচ্ছে – আরো পড়ে আগে বোঝে নিই কোন হাসি হাসবো…
    শুভেচ্ছা রইল কবি –

  7. টি. আই. সরকার (তৌহিদ) মন্তব্যে বলেছেন:

    এতো হাসির গল্প কই ছিল এতোদিন ! :( একবার যেহেতু হাসাইলেন এই হাসানো বন্ধ করলে কিন্তু খবর আছে ! :) মানে, মনে-প্রাণে চাচ্ছি আপনি নিয়মিত লিখেন আর আমি নিয়মিত হাসি ! 😛 শুভ কামনা রইল আপু ।

    • আরজু মূন জারিন মন্তব্যে বলেছেন:

      সবাই তো চাই নিয়মিত হাসতে হাসাতে।হাসিটা তো দুস্প্রাপ্য হয়ে গেছে ।আপনি বললেন যখন চেষ্টা করে দেখব নিয়মিত হাসতে এবং হাসাতে।

      ধন্যবাদ তৌহিদ মন্তব্যের জন্য।অনেক শুভেচ্ছা রইল।

  8. সবুজ আহমেদ কক্স মন্তব্যে বলেছেন:

    খুব মজার লিখা
    পড়তে পড়তে অনেক মজা পেলাম
    খুব সুন্দর
    শুভ কামনা রইল
    শুভ বিকাল

  9. আরজু মূন জারিন মন্তব্যে বলেছেন:

    ধন্যবাদ সবুজ আহমেদ।আপনার কমেন্টসে আনন্দিত হলাম।ভাল থাকুন।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top