Today 19 Jun 2021
banner
নোটিশ
ব্লগিং করুন আর জিতে নিন ঢাকা-কক্সবাজার রুটের রিটার্ন বিমান টিকেট! প্রত্যেক প্রদায়কই এটি জিতে নিতে পারেন। আরও আছে সম্মানী ও ক্রেস্ট!
banner

হে আলোক-সন্তানেরা !

লিখেছেন: সাঈদুল হাসান | তারিখ: ২৪/০৬/২০১৩

এই লেখাটি ইতিমধ্যে 1094বার পড়া হয়েছে।

রোজকার খবরের পাতাগুলো
জবরদখল করে প্রাসাদের পর অট্টালিকা বানাচ্ছে
ধর্ষক লুচ্চা চোর বদমাশ ঘুষখোর মাস্তান চাদাবাজ
সুদখোর আর মাগীর দালালরা।
কালের কালো উন্মাদ বায় উন্মত্ততায়-
শিশু মেয়ে যুবতী বিধবা অথবা বয়োবৃদ্ধারাও
নারীত্বের সম্ভ্রম নিয়ে আটপ্রহর শঙ্কায় থাকে ।

পানি ক্ষরানো জানোয়ারগুলো !
ফুট পথের গলিতে কুকড়ে থাকা নেড়িকুত্তার মতোন
এখন কেউ আজ এত্তটুকুনও হাত গুটিয়ে বসে নেই।

হিজড়া ! ! !
হররোজ কতিপয় জ্যোতিপ্রায় হিজড়ারাও
ল্যাম্পপোষ্টের নিয়ন জ্যোস্নায় জলখেলায় তৎপর।

দেয়ালে পিঠ সেটে আছে যেন সমকালীন রিপু কন্ঠস্বরদের।

প্রশ্ন জাগে, সত্যি কি এখানে এখন বা আদৌ আয়না ছিলো কী ?
সেদিনের বৗর আলোকিত সন্তানেরা সত্যই কী আজ সকলে মৃত ?
তাহলে,সমাজ-সভ্যতা-সংস্কৃতি-রাজনীতিতে বিচরণকারী এরা কারা ?

চরম লজ্জা আর জঘণ্য ঘৃণায় বলতে হয়
বঙ্গের অঙ্গের দাবীদারের হয় ধর্ষক নয় ধর্ষিতা কিংবা নূপুংসুক ।
সমষ্টিক ব্যাষ্টিক অংক কষলে মাথা তুলে দাঁড়ায়
আজ কাল পরশুরা জারজ !!!
সত্যিই মাতৃ-পিতৃপরিচয়হীন ?

শ্যামাঙ্গের আইন-আদালত, উকিল-মোক্তার-ভোক্তার, দফাদার
শাসক, মোড়ল-মোল্লা-মাদবর-সরদার,কাজী
প্রশাসন অথবা প্রশাসকেরা সব কি আজ ভক্ষক ?

দৈন্য দশার সরকার
মগজহীন কিম্ভুতকিমাকার !!

হেনকালের কাজীরা বিচারের বাজী পোঁড়ায়,
ঈশান গগণে মেঘের গর্জন দেখে।
কালম চাষাদের খরিদ্দার শিকার ?
-যেন পসারিনীর বিষাক্ত জিহ্বায়
কালের পোশাক পাল্টায়।

হে ভাষা ও মুক্তিযুদ্ধের আলোকিত সোনার বাঙলার
হীরের টুকরো সন্তানেরা আর তার যোগ্য উত্তরসূরীরা!
তোমরা কোথায় ?
তোমরা কোথায় ?
বঙ্গের অঙ্গ আজ তোমাদের ছাড়া ভীষণ বিশ্রী বেমানান,
তোমাদের খুব-খুব করে দরকার আজ
চাই আর একটিবার যুদ্ধের সাজ
ভাষা ও মুক্তি শহীদেরা পাচ্ছে যে লাজ ।

বেশ্যাদের লাইসেন্স দিচ্ছে সরকার
দেদারছে,
সুদখোর ঘুষখোর মদখোর আর মাগীর দালালরা
বাপ-বেটা মিলে যে যতোটা পারছে ততোধিক নিয়ে-
ফুলে ফেঁপে কলাগাছ হচ্ছে ।

৪৮,৫২,৬৯,৭১ এখন এখানে ঊচ্ছিষ্ট,
কাগজে-কলমে,সভা-সেমিনারে শুধু ভ্রষ্ঠদের আগডুম-বাগডুম !
কড়িতে মেলে না কী ?
মেলে সমস্তের সমষ্টি মেলে
মাত্র সত্য ছাড়া ।

৭১ পর কালে
নড়িহারা কবি,সত্যের পথিক,সম্বলহীন সাহসীদের
আজও যেতে হয় জেলে
এখানে এখন সত্যকে জ্বালানো হয়
বেগুন আর তেলে।
আফসোস্ ! আফসোস ! আফসোস !

নাস্তিকরাও নশ্বর হলে অভাব হয় না মাটির , তবে
দলিলধারী করদাতা নটি-বিনোদিনীরা
হয়নি আজো নিখাঁদ খাঁটি,তাই মরলে পরে
জোটে না এক মুঠো মাটি।

বিশ্বায়নের নামে বেশ্যায়ন,
নারীবাদের নামে নগ্ন খাঁদ
মানবতাবাদের নামে সুসভ্যতায় অপবাদ, আর
উলঙ্গ শূন্য সংস্কৃতিতে ভুলে গেছি-
আমরা বাংলাদেশি ।

জেনেছি যদ্দুর-সকল ধর্মে পতিত-পতিতারা দোষী।
কিন্তু এখানে আজ !
স্ত্রী অঙ্গ বিকিকিনিরাই-ই যত নন্দঘোষী ।
আর সব গঙ্গাস্নানে ধোয়া তুলসির পাতা?
কলমের কলিজায় আজ ভীষণ অসহ্য ব্যাথা ।

হে মহান-দাতা এাতা!
হে ভাষা ও মুক্তির বীরেরা!
একটা কিছু করবে কী ?
দয়অ করে মুখোমুখি বসবে কী?

হায় বঙ্গ !!
তোমার অঙ্গে বিলিতি কুত্তা দোলে!
ভবিষ্যতের কপালে কী ঝোলে ?
খোঁজ করেছ কী পোলা কই গেল ?
সেদিনের বীরেরা গেলে কোথা আজ ?
দরকার আজ আরেকটি যুদ্ধের সাজ ।

লালসালুর মজিদরা আজও
নব-নবারুণ ছকে,ছলে-বলে কাল কূট কৌশলে
গোলটেবিলে-মানববন্ধনে-শ্লোগানে-মিছিলে-মিছিলে
ঘষেটি বেগম আর মীরজাফদের উপস্থিতিতে
ভীষণ রকমের উদ্বিগ্ন আজ।

মিথ্যার মগজে আঘাতকারীরা
আজো এখানে এখনো
চৌদ্দ শিকে মরে বাঁচে ।

হে আমাদের পিতৃতুল্য পিতৃব্য সর্ব্বজন শ্রদ্ধেয়
লাল সবুজের পতাকা দাতারা, মানলেই কী হার !
এক্ষুনিই যে আর একটি যুদ্ধ দরকার।
হে চিরভাস্বর জ্যাজ্বল্যমান আলোকিত ভাষা ও স্বাধীনতার বীরেরা!
তোমাদের বুকের তাজা রক্ত রাজপথে ঢালা ,
অস্ত্রের সামনে আত্মসমর্পন না করে জীবন হারা,
মা-বোন-ভ্রাতা-ভগ্নি-সন্তান-সম্ভ্রম হারা ,
সার্বজনীন পরম শ্রদ্ধেয় মা বাবা ভাই বোন আত্মীয় স্বজনেরা,
তোমাদের স্বাধীন করা এদেশে এখন
প্রেমিক-প্রেমিকেরা হাত বদলায়
বাকশালী আর স্বৈরাচারী কায়দায় ।
অস্বীকৃত আগতেরা ,
চাই বাঁচবার অধিকার ।

ছিঃ ছিঃ ছিঃ !!!
ভাষার শহীদেরা করবে কী আবার আত্মহত্যা ?
এই ব্যর্থতার প্রতিকূলতা দেখে-দেখে
জীবিত বীরের আঝো কি এখনো জেগে ?
হে আলোক সন্তানেরা !
কত্ত আর রবে নিরবে ?
আলোর মশাল হাতে ফিরে আসো আবার আমাদের করে-
আগামী আমরা
আমরা বাঁচতে চাই
বেড়ে উঠতে চাই
আকাশ ছুঁয়ে দেখতে চাই
মুক্ত আকাশ চাই
ভালোবাসতে চাই তোমাদের করে
এ দেশ, মা-মাটি আর মাতৃভূমি ।
হে আলোর পিতারা !
তোমাদেরকে আমরা পরম শ্রদ্ধায় চুমি ।

১,১৮৬ বার পড়া হয়েছে

লেখক সম্পর্কে জানুন |
শুধুই তো নিয়ে যাচ্ছি,দেবার কথা তো ভাবতে হবে, ঋণী হয়ে তো আর মরতে চাইব না, তাই ঋণ শোধের এই সামান্য প্রয়াস
সর্বমোট পোস্ট: ৪৪ টি
সর্বমোট মন্তব্য: ৭৮ টি
নিবন্ধন করেছেন: ২০১৩-০৫-২৯ ০৭:০৪:০৯ মিনিটে
banner

৮ টি মন্তব্য

  1. আমির হোসেন মন্তব্যে বলেছেন:

    সুন্দর কবিতা।

  2. আজিম হোসেন আকাশ মন্তব্যে বলেছেন:

    ভাল লাগল।

  3. আরিফুর রহমান মন্তব্যে বলেছেন:

    খুব ভাল লাগল। ধন্যবাদ।

  4. তাপসকিরণ রায় মন্তব্যে বলেছেন:

    বিদ্রোহ কবিতা–দেশের বর্তমান সমস্যা জ্বলন্ত করে তুলে ধরেছেন।অনেক মর্মস্পর্শী সন্দেহ নেই।

  5. এম, এ, কাশেম মন্তব্যে বলেছেন:

    প্রতিবাদডী কবিতা
    অসংখ্য ভাল লাগা……………

  6. তুষার আহসান মন্তব্যে বলেছেন:

    “হিজড়া ! ! !
    হররোজ কতিপয় জ্যোতিপ্রায় হিজড়ারাও
    ল্যাম্পপোষ্টের নিয়ন জ্যোস্নায় জলখেলায় তৎপর।

    দেয়ালে পিঠ সেটে আছে যেন সমকালীন রিপু কন্ঠস্বরদের।”

    ভাল হয়েছে।

  7. শাহ্‌ আলম শেখ শান্ত মন্তব্যে বলেছেন:

    সুন্দর লিখেছেন তো !
    অসংখ্য অসংখ্য ভাল লাগা জানিয়ে দিলাম ।

  8. সবুজ আহমেদ কক্স মন্তব্যে বলেছেন:

    মুগ্ধকর কবিতা
    মুগ্ধই হলাম পড়ে
    দারুন কাব্যতা সুন্দর বেশ

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করতে লগিন করুন.

go_top